Home কবিতা জুননু রাইন > পাঁচটি নতুন কবিতা

জুননু রাইন > পাঁচটি নতুন কবিতা

প্রকাশঃ July 26, 2017

জুননু রাইন > পাঁচটি নতুন কবিতা
0
0

পাঁচটি নতুন কবিতা

শিরোনামহীন-১

ধর,

আমাদের মনে পড়াগুলো দূরে গেল। গেল ফুল ফুঁটতে, ফসল ফলতে,

বনে আগুনের প্রতিবাদে- জলে আগুন দিতে

কিংবা মানুষের সঙ্গে সবুজের দূরত্বের ইতিহাস লিখতে।

 

গতকাল রাতেভেজা শাড়ি পড়ে বারান্দায় এসেছিলে-

শাড়ি খুলে চাঁদ দেখি, দেখি জোছনায় রেখে দেওয়া তোমার আলোয় ভিজছি

আর ডুবে যাচ্ছি জন্মজলে। একটা বাঁশি- ভাঙা নয়, তবু দুই জন্মের হাতে,

সুরের অন্ধ ঢেউয়ে আছড়ে পড়ছে নদী, নদীটির আঘাতে

তুমি তো এতোটুকু এসে অনেকখানি চলে যাও, নিয়ে যাও আরও বেশি

এই দৃশ্যের জন্ম কী ভয়ঙ্কর জানে আমার মা মাকড়সার রাশি!

 

ধর,

আমাদের দেখাগুলো গেল মানুষের সঙ্গে পাখির দূরত্ব মাপতে,

দু’দিনের বাঁকা চাঁদের মতো তোমার অভিমান খুঁজতে,

অথবা তোমার কপাল ছোঁয়া একটি বিশেষ নীলের খোঁজে

পাহাড়ের তলদেশে…

 

যে পাতা ঝরে যায় কোন কিছুর ‘মতো’ তারও জন্ম হয়।

দিন হয় রাত হয়। তুমি এলে এ শহর জীবনের গন্ধ পায়,

চলে যাওয়ায়-কিছু নেই থেকে অনেকগুলো তোমাকে হারায়।

এই নিয়তির গতি আর গতির নিয়তি, শেষের জোয়ারে, ভরে ওঠে,

ভালোবাসার নদী ইছামতি।

 

শিরোনামহীন-২

 

এখানে জীবন তাকে একটাই মনে করায়, যে স্টেশনে বৃষ্টি নেমে মানুষের ঢেউ ফলে,

সেখানে রোদের ফুল হলে ভুল হয়। যেখানে তোমার হাসির গম্বুজ ছিল- সে পথে

এখন ফুলস্টপের প্রার্থনালয়। এখানে জীবন যাবার পথে তার সাথে আমাদের বেঁধে

নিয়ে যায়। যেখানে তুমি ভেঙে পড়ো- সেখানে খুশির অজস্র চারাগাছ স্নেহের বাতাসে

খেলেছিল। এই আলো-আঁধারের মাঝে এক অবাক দেয়ালের নাম সত্য-মিথ্যে।

এখানেই চাপা পড়ে আছে আমাদের সেদিনের আসাগুলো…

 

 

শিরোনামহী-৩

 

তাহলে চলো হাটে যাই

অতীতের ডালায় তোমার ফুলগুলো সাজাই

তোমার চোখের ভালোবাসার জলের দোহাই

ক’ফোঁটা আবেগ ছিটিয়ে নদীটি জাগাই?

যেতে যেতে সে রাতের গল্প করি

গল্পে বাঁধি সত্য, তুমি সত্যের কারবারী

 

এখনও তোমার অভিমান-

রাতের মিনারে নীল নামে ফোঁটে

এখনো তোমার নামে পাখির গানেরা-

সুরহীন পাহাড়ের বোবা সুরে রটে

 

চলো যাই

তোমাকে খুঁজেতে খুঁজতে

পৃথিবীর হাতে মুখে ফসলের গন্ধ মাখাই।

 

শিরোনামহীন-৪

একদিন কবিতাটি লেখা হয়ে যাবে
আমাদের তার কাছে যেতে ইচ্ছে হবে
এখন আমরা অতীত!

এখানে থেকে অনাগত ইতিহাস দেখব?

তোমার বাস্তবের সকাল আর বিকেল
আমি অনাগত ইতিহাসে দেখব!

তোমার বাস্তবের মেঘ রোদ ঝড় বৃষ্টিকে
আমি অনাগত ইতিহাসে দেখব!

তোমার বাস্তবের হাসির জোছনাকে
আমি অনাগত ইতিহাসে দেখব!

তোমার সবুজ টিপের রাগ-অভিমানে
ঝরে পড়া ভুলের ফুলগুলো
আমি অনাগত ইতিহাসে দেখব!

যেদিন লেখা হয়ে যাবে…
কবিতাটির কাছে, আমাদের যেতে ইচ্ছে হবে?

 

শিরোনামহীন-৫

তারপর, হাসতে হাসতে আলো এসে তোমার চোখে অদৃশ্য আঙুল বিঁধল
তুমি কিছুই বলবে না, সে-আলো, তোমার চোখ পৃথিবী দেখতে চায়
ধর, তার কাছে হাসি- সৃষ্টি ও ধ্বংসের খুচরো সঞ্চয়
তোমার কাছে তার প্রতিটি শব্দ জন্মের ইতিহাস
জীবনের ঢেউ

তারপর, হাসতে হাসতে তার পোষা রাত্রিটি এসে তোমাকে ধুয়ে দেয়
তুমি উঠে দাঁড়াও, হাঁটতে হাঁটতে তোমার হাঁটাগুলো তার কাছে রেখে দাও
তারপর, হাসতে হাসতে তুমি আবার আলোর দিকে যাও
তখন আলো নিজেকে ফেরায়
আলো চোখ বন্ধ করে
আলো ঘুমায়

তারপর হাসতে হাসতে, অভিনয়গুলো সত্যের হয়, সত্যগুলো অভিনয়,
এরপর হাসি তোমাকে ফেলে রেখে, হাসতে হাসতে
সময়ের হাত ধরে হারিয়ে যায়

 

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন

লেখাগুলো সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করুনঃ

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *

hijal
Close